‘শিক্ষক সমাজ বনাম মানব সমাজ’

ইমরুল কবির  | ৪ আগস্ট ২০২২ ১১:৪৮

সংগৃহীত সংগৃহীত

যদি আমরা একবার অনুধাবন করি, কি উদ্দেশ্য নিয়ে বর্তমান সমাজ গড়ে উঠেছে? তাহলে আমরা উত্তর পেয়ে যাবো -নিরাপত্তা, সুখে শান্তিতে বসবাস, মানব কল্যাণের জন্য সমাজের সৃষ্টি হয়েছে।

সমাজ সৃষ্টির অন্যতম লক্ষ্য ছিল মানব কল্যাণ, যার উদ্দেশ্য অর্জন হবে তখন যখন আমরা সমাজের প্রতিটি স্তরে মানব কল্যাণ নিশ্চিত করতে পারবো কিন্তু আমরা বর্তমান সমাজে কতটুকু মানব কল্যাণ নিশ্চিত করিতেছি, আপনাদের নিকট প্রশ্ন রয়ে গেল?

মানব কল্যাণ বলতে বুঝায় সমাজের প্রতিটি মানুষ সহবস্থানে দাঁড়িয়ে প্রতিটি মানুষের পাশে থেকে সমাজে প্রতিটি স্তরে সুন্দর পরিবেশ নিশ্চিত করা।পরিবার, গোষ্ঠী, সম্প্রদায় থেকে বিবর্তনের মাধ্যমে সমাজের সৃষ্টি কিন্তু কোথায় পাবো আমি মানব কল্যাণ, পরিবার, গোষ্ঠী, সম্প্রদায় গুলো এখন ঝাপটা হয়ে যাচ্ছে অর্থনীতির অদৃশ্য হাত দ্বারা।

কোথায় পাবো আমি সেই কল্যাণ। শিক্ষকদের বলা হয় জাতির আর্দশ তাঁরা ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে প্রকৃত শিক্ষার চর্চার জ্ঞান ছড়িয়ে দিবে এবং উদার মানসিকতা সৃষ্টির মাধ্যমে অন্তরের সুকুমার বিষয়গুলোকে আলোড়িত করবে যার ফলে আমাদের মানব সমাজে মানব কল্যানের প্রকৃত শিক্ষা ছড়িয়ে যাবে এবং একটি সুখি সুন্দর সমাজ প্রতিষ্ঠিত হবে।দুঃখের বিষয় শিক্ষক সম্প্রদায়ের মত পাণ্ডিত্য সমাজে আমরা কি দেখি- হিংসা, পরশ্রীকাতরতা, প্রতিযোগিতা, কাঁদা ছোড়াছুড়ি আরও কত কি? তখন আবার নিজেকে প্রশ্ন করি আমাদের মত পাণ্ডিত্য সমাজে যদি এমন হয় তাহলে সামগ্রিক চিত্র কি বলে।

কোথায় হবে মানব কল্যাণ, কোথায় হবে সুখি সুন্দর সমাজ?লালন বলেছেন সমাজে মানবকল্যাণ প্রতিষ্ঠিত হয় যদি সমাজে ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠিত হয়।সমাজবিজ্ঞানী কান্ট যেমন সমাজের সব স্তরে বোধ বুদ্ধির প্রয়োগকে আলোকায়ন করে অভিহিত করেছেন ঠিক তেমনি লালন তার গানে সমাজবদ্ধ মানুষকে সহজ সরল বোধ -বুদ্ধির প্রয়োগ করার সাহস দেখানোর জন্য আহ্বান করেছিলেন।

লালন তার প্রতিটি গানে ঔপনিবেশিক সমাজ থেকে ফুকোর মতো উত্তরাধুনিক সমাজে অসাম্য- বৈষম্য সৃষ্টিকারী কৃত্রিম সামাজিক নির্মানগুলো সমাজে শিকড় গেড়ে না বসে এই কথা বলেছেন বারবার।যদি এমন অবস্থা সৃষ্টি করা যায় তাহলে মানবকল্যাণ প্রতিষ্ঠিত হবে এবং সমাজে সহজ মানুষ হিসেবে হাজির থাকার প্রবণতা সৃষ্টি হবে। ব্যক্তি তখন প্রতিষ্ঠিত মতাদর্শে হারিয়ে যাবে না, সমাজ হবে ন্যায্য ও সুন্দর।

ইমরুল কবির

উন্নয়ন গবেষক ও প্রভাষক

বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়,জামালপুর।

 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: