নুরের বিরুদ্ধে মামলা: লাইভে এসে চাইলেন ক্ষমা

সময় ট্রিবিউন | ১৯ এপ্রিল ২০২১ ১০:১১

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর-ছবি: সংগৃহীত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর-ছবি: সংগৃহীত

ফেসবুক লাইভে এসে আওয়ামী লীগকে নিয়ে অশালীন মন্তব্য করায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুরের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

মামলা হওয়ার পর নিজের বক্তব্যের জন্য এবার ক্ষমা চেয়েছেন ডাকসুর সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর।

রোববার (১৮ এপ্রিল) মধ্যরাতে ফেসবুক লাইভে নুর বলেন, আওয়ামী লীগে অবশ্যই ধর্মপ্রাণ মুসলমানরা আছেন, হিন্দু-খ্রিস্টান ভাইবোনরা আছেন। আমি আওয়ামী লীগের বা আওয়ামী সমর্থকদের ঢালাওভাবে আক্রমণ করে কোনো কথা বলিনি।

তিনি আরও বলেন, আমার লাইভের বক্তব্যের জন্য কেউ কষ্ট পেয়ে থাকলে আমি দুঃখ প্রকাশ করছি। স্বাভাবিকভাবে আমার যদি ভুল হয় আমার জায়গা থেকে ১০০ বার ক্ষমাপ্রার্থী থাকব। আমার ভুল হতেই পারে, আমি মানুষ, ফেরেশতা না।

মামলা হওয়ার পর ফেসবুক লাইভ ডিলেট করে দেওয়া প্রসঙ্গে নুরু বলেন, আমি সানন্দে অনেকের পরামর্শ গ্রহণ করি। আমাকে অনেকে বলেছেন, গত ১৬ মার্চের লাইভে যা বলেছি একজন নেতৃত্বশীল জায়গা থেকে আমাকে একটু সহনশীল হতে হবে। এমনকি শত্রুপক্ষকে আক্রমণ করে কোনো কথা বলা আমার জায়গা থেকে কাম্য নয়। তাই আমি আমার ফেইসবুক পোস্ট লাইভ ডিলিট করে দিয়েছি।

উল্লেখ্য, রোববার শাহাবাগ থানায় যুবলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মো. আশরাফুল ইসলাম সজীব বাদী হয়ে নুরুর বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা দায়ের করেন।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, বুধবার ফেসবুক লাইভে এসে নূর বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ ও সমর্থকরা প্রকৃত মুসলমান নয়। প্রকৃত কোনো মুসলমান আওয়ামী লীগ করতে পারে না।’

নুরের এমন বক্তব্যে আওয়ামী সমর্থন করা মুসলমানদের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত হেনেছে। এ কারণে তার বিরুদ্ধে মামলাটি রুজু করার আবেদন করা হয়েছে।

মামলার এজাহারে আরও বলা হয়েছে, লাইভে নুর আওয়ামী লীগ সমর্থকদের ‘চাঁদাবাজ’, ‘মাদক চোরাকারবারি’, ‘ধোঁকাবাজ’, ‘বাটপাড়’ উল্লেখ করে বলেন, ‘তারা (আওয়ামী লীগ) সপ্তাহে একদিন নামাজ পড়েন, কিন্তু কখনও পাঁচ ওয়াক্ত নামাজ পড়েন না।

তারা ঘুষ নেয়, চাঁদাবাজি করে, মাদক চোরাচালান করে এবং টেন্ডার ব্যবসা করে। আবার নিজেদের মুসলমান দাবি করে। কোনো মুসলমান আওয়ামী লীগের সমর্থন করতে পারে না। যারা আওয়ামী লীগ সমর্থন করে, তারা প্রকৃত মুসলমান নয়।’



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: