ডেমরা ও পাশ্ববর্তী এলাকাগুলোতে তীব্র গ্যাস সংকট: সামাজিক মাধ্যমে ক্ষোভের ঝড়

সালে আহমেদ, ডেমরা (ঢাকা) | ২০ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৫:০৩

সংগৃহীত সংগৃহীত

রাজধানীর ডেমরা ও পাশ্ববর্তী এলাকাগুলোতে তীব্র গ্যাস সংকট দেখা দিয়েছে। ডেমরার বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় গ্যাস সংকট দেখা দিচ্ছে। এতে সমস্যা হচ্ছে নিত্যদিনের রান্নাসহ গৃহস্থালীকর্মে।

ডেমরার বেশিরভাগ এলাকায় গ্যাসের চুলা কখনো জ্বলছে, কখনো জ্বলছে না। আবার কখনো জ্বলছে নিবু নিবু করে। তবে অনেক এলাকায় এখন আর রাতেও চুলা জ্বলছে না।ডেমরার অধিকাংশ এলাকায় সকাল থেকে মধ্য রাত অবধি গ্যাসের চাপ নেই বললেই চলে। ফলে বাধ্য হয়ে লাকড়ির চুলায় রান্নার কাজ শেষ করছেন গৃহিণীরা।

গ্যাস সংকটের ক্ষোভ এখন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিভিন্ন গ্রুপগুলোতে সরব রয়েছে জোরালো প্রতিবাদে। ডেমরার বৃহত্তম ডেমরা গ্রুপ ও ডেমরা সোসাইটিতে বিভিন্ন শ্রেনীর মানুষ প্রতিবাদের পোষ্টে জোরালো ভুমিকা রেখেছে। সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে কমেন্টে দেখা যাচ্ছে নানান ধরনের কৌতুকপূর্ণ মন্তব্য ও বিষাদের ছোয়া। গ্যাস না থাকায় গৃহিণীদের মেজাজ চড়ে আছে। বাসায় চুলা না জ্বালাতে পেরে অনেকেই আবার বাইরে থেকেই খাবার কিনে নিচ্ছেন। গ্যাসের ভোগান্তিতে পড়ে সব গ্রাহকই রাত-দিন তিতাস গ্যাস কর্তৃপক্ষের গোষ্ঠী উদ্ধার করছে। এমনিতেই জ্বালানির দাম বৃদ্ধিসহ প্রয়োজনীয় জিনিসের মূল্যবৃদ্ধি তার উপর আবার মড়ার উপর খাড়ার ঘাঁ।

কোনাপাড়ার বাসিন্দা আইয়ুব আলী সকালের সময়কে বলেন, ডেমরার কোনাপাড়ায় গ্যাস সমস্যা দীর্ঘদিনের। ঢাকার জনবহুল এলাকা ডেমরা থানাধীন পাড়াডগাইর, কোনাপাড়া সহ আশেপাশে গ্যাস ও পানির সমস্যা দীর্ঘদিনের। অথচ কর্নপাত করছে না কর্তৃপক্ষ।

এলাকাবাসির অভিযোগ এখানে প্রায়ই সময়ই ঠিকমতো গ্যাস থাকে না। মাঝে মাঝে খাবার পানিতে প্রচুর ময়লা থাকে। যা খাবারতো দূরের কথা ব্যবহার করার উপযোগী পর্যন্ত নয়।

এ এলাকাটি আবাসিক এলাকা হওয়ায় সারাদিন রান্না করার কাজে প্রচুর গ্যাস প্রয়োজন পরে। কিন্তু এখানে সঠিক মতো কোন গ্যাস পাচ্ছে না। অনেকে সকালের খাবারের জন্য রাত ৩/৪ টার সময় ওঠে রান্না করতে হয়।

এ বিষয়ে ডগাইর বাসিন্দা আফতাব আহমেদ শরীফ বলেন, গ্যাস সংকট ও বাস্তবতা ও সমাধান: ডেমরা এরিয়া সহ ঢাকা ও ঢাকার আশে পাশে গ্যাস সংকট চরম এ।

সংকটের কারণ:

১. গ্যাস ভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র চালু রাখা।

২. শিল্প কারখানা গুলোতে নিরিবিচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ।

৩. গ্যাস পাম্প গুলো সচল রাখবার জন্য গ্যাসের প্রেসার ঠিক রাখতে গ্যাস সরবরাহ।

৪. তিতাসের অবস্থাপনা ও

৫. চুরি।

বাস্তবতা:

১. সিলিন্ডার গ্যাস যারা ব্যবহার করেন একটু ভেবে দেখুন তো যারা এই বিপণনকারী তাদের পরিচয়? বসুন্ধরা এলপিজি গ্যাস, ওমেরা এলপিজি সহ নানা হর্তাকর্তা উনাদের স্বার্থে উনারা চাইবেন যাতে কৃত্রিম ভাবে হলেও গ্যাস সংকট বাসা বাড়িতে হোক। তাতে পাবলিক সিলিন্ডার কিনবে এবং উনাদের মুনাফা হবে।

জানা গেছে, ডেমরার মাতুয়াইল, ফার্মের মোড়, মোমেনবাগ, বামৈল, সানাপাড়, কোনাপাড়া, শাহজালাল রোড, ডগাই ব্যাংক কলোনী, মদিনাবাগ, বাশেরপুল, বড়ভাঙ্গা, গ্রীনসিটি, মোমেনবাগ, আল আমিন রোড, বক্রনগর, হাজীনগর, হিজলতলা, খন্দকার রোড, ইস্টান হাউজিং ডগাইসহ ডেমরার বিভিন্ন এলাকায় গ্যাসের এ সংকট চলছে।

বাশেরপুলের বাসিন্দা রোকসানা আক্তার জানান, এগুলা কেমন ধরনের অবিচার? গতকালকে রাত থেকে গ্যাস নাই। সকাল থেকে এখন পর্যন্ত চুলায় আগুন ই নাই। কি করবে কেমন করে মানুষ?

ডগাইর বাসিন্দা ফারজানা মুন্নি বলেন, গ্যাসের সমস্যার জন্য এই এলাকা থেকে বাসা ছাড়ার পরিকল্পনা নিচ্ছি। এসময় তিনি অভিযোগ করেন, দিন দিন গ্যাস সংকট প্রকট হচ্ছে। মধ্য রাতের আগে গ্যাস পাওয়া যায় না। তাই বাসায় রান্না তৈরি করা সম্ভব হয় না। অনেক সময় বাইরে থেকে কিনে আনতে হয়। এই অত্যাচার আর ভালো লাগে না। গত বছর এই এলাকায় তেমন গ্যাস সংকট ছিল না। কিন্তু এবার গ্যাস সংকট দেখা দিয়েছে।

ডেমরার হোটেল ব্যবসায়ী আবুল হোসন বলেন, গত কয়েকদিন ধরে কাষ্টমারের চাপ বাড়ছে।আগের তুলনায় বেচাকেনা অনেক বৃদ্ধি পাচ্ছে।গ্যাস সংকটের কারনে মানুষ বাসাবাড়িতে রান্না করতে না পারার কারনে অনেক হোটেল থেকে খাবার নিচ্ছে। তবে এ সমস্যার দরুন তার বেচাকেনা বৃদ্ধি পাচ্ছে বলে জানান তিনি।

গ্যাসের এ সংকট প্রসঙ্গে জানতে চাইলে তিতাসের জন সংযোগ কর্মকর্তা মির্জা মাহবুব হোসেন বলেন, রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্যাস স্বল্পতা সংক্রান্ত অভিযোগ আসছে’। গ্যাস সংকট উত্তোরনে কাজ চলছে ইতিমধ্যে। গ্যাসের উৎপাদন বৃদ্ধি না পাওয়া এবং চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় মূলত সংকট তৈরি হয়েছে।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: