নওগাঁয় ৬টি আসনে ২২ জনের মনোনয়ন পত্র বাতিল

শহিদুল ইসলাম জি এম মিঠন, সিনিয়র রিপোর্টার | ৪ ডিসেম্বর ২০২৩ ১৮:২৩

নওগাঁয় ৬টি আসনে ২২ জনের মনোনয়ন পত্র বাতিল
জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নওগাঁর ৬টি সংসদীয় আসনে ২২ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল হয়েছে। নওগাঁর জেলা প্রশাসক ও ৬টি আসনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক গোলাম মওলা নানা অসঙ্গগতির কারনে এসব প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেছেন।
 
মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার পর যাচাই-বাছাই শেষে সোমবার সকাল ৯টা থেকে নওগাঁ জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বৈধ ও বাতিল হওয়া প্রার্থীদের নাম ঘোষণা করা হয়। এসময় ৩৩ জনের মনোনয় পত্র বৈধ্য ঘোষণা করা হয়। বিকেল ৪টা পর্যন্ত এই কার্যক্রম শেষ হয় জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসক গোলাম মওলা এই ঘোষণা দেন।   
 
নওগাঁ-১ (নিয়ামতপুর, পোরশা ও সাপাহার) ৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এ আসনে বৈধ্য প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার, স্বতন্ত্র জামেদ আলী, জাতীয় পার্টির আকবর আলী কালু, জাকের পার্টির মোহাম্মদ আলী।
 
বাতিল হওয়া প্রার্থীদের মধ্যে নিয়ামতপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য খালেকুজ্জামান তোতা ও সোহরাব হোসেনের পক্ষে সংসদীয় এলাকার ১ শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষরসংবলিত সমর্থনসূচক তালিকায় ত্রুটিযুক্ত স্বাক্ষর ও মামলার তথ্য গোপন রাখায় তাঁদের মনোনয়ন ফরম বাতিল করা হয়। 
 
নওগাঁ-২ (পত্নীতলা ও ধামইরহাট) আসনে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দেন। এ আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন জমা দেওয়া ৬ জন প্রার্থীর-ই মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে। ঋণ খেলাপী হওয়া, মামলার তথ্য গোপন রাখা ও সংসদীয় এলাকার ১ শতাংশ  ভোটারের স্বাক্ষর সংবলিত সমর্থন সূচক তালিকায় ত্রুটিযুক্ত স্বাক্ষর সহ বিভিন্ন অসঙ্গতির কারণে তাঁদের মনোনয়ন বাতিল করা হয়।
 
বাতিল ৬ প্রার্থী হলেন, নওগাঁ জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আইয়ুব হোসেন, জেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক আমিনুল হক, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপ-কমিটির সাবেক সহ-সম্পাদক এইচএম আখতারুল আলম, নজিপুর পৌর স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক কাজল চন্দ্র দাস, ধামইরহাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য আজিজার রহমান ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মেজবাহুল আলম। 
 
বৈধ্য প্রার্থীরা হলেন নওগাঁ-২ আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী শহীদুজ্জামান সরকার, জাতীয় পার্টির অ্যাডভোকেট তোফাজ্জল হোসেন, জাকের পার্টির এম আর ফারুক।
নওগাঁ-৩ (মহাদেবপুর ও বদলগাছী) আসনে ১১ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী সাবেক আমলা সৌরেন্দ্রনাথ চক্রবর্তী, স্বতন্ত্র প্রার্থী সংসদ সদস্য ছলিম উদ্দিন তরফদার, মাহফুজা আকরাম চৌধুরী মায়া, জাতীয় পার্টির মাসুদ রানা, জাকের পার্টির আলম হোসেনের মনোনয়ন ফরম বৈধ ঘোষণা করা হয়েছে। 
 
বিভিন্ন অসঙ্গতির কারণে কৌতুক অভিনেতা শামীনুর রহমান ওরফে চিকন আলী ও আওয়ামী লীগের স্বতন্ত্র প্রার্থী ডিএম মাহবুব-উল মান্নাফ সহ ৫ জনের মনোনয়ন বাতিল করা হয়েছে। মনোনয়ন বাতিল হওয়া অপর তিন প্রার্থী হলেন, বিএনএমের প্রার্থী জাবেদ আলী, এনপিপির প্রার্থী স্বপন কুমার দাস ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ফিরোজ হোসেন। এছাড়া তৃণমূল বিএনপির প্রার্থী সোহেল কবির চৌধুরীর মনোনয়ন ফরম স্থগিত রাখা হয়েছে।
নওগাঁ-৪ (মান্দা) আসনে ১০ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এদের মধ্যে বিভিন্ন অসঙ্গতির কারণে ৪ জনের মনোনয়ন ফরম বাতিল করা হয়েছে। 
 
বৈধ্য প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগের প্রার্থী নাহিদ মোর্শেদ, স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য ইমাজ উদ্দিন প্রামাণিক, স্বতন্ত্র প্রার্থী জেলা আওয়ামী লীগের সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক এসএম ব্রুহানী সুলতান মামুদ (গামা), জাতীয় পার্টির আলতাফ হোসেন, জাকের পার্টির দেলোয়ার হোসেন, বাংলাদেশ কনগ্রেস এর আব্দুর রহমান। 
 
বিভিন্ন অসঙ্গতি সম্বলিত কাগজপত্র জমা দেয়ায় মনোনয়ন পত্র বাতিল হওয়া ৪ প্রার্থীরা হলেন, দলীয় সুপারিশপত্র না থাকায় বাংলাদেশ কংগ্রেসের প্রার্থী কামাল পারভেজ, সংসদীয় এলাকায় ১ শতাংশ ত্রুটিযুক্ত স্বাক্ষর কারণে স্বতন্ত্র প্রার্থী আফজাল হোসেন, স্বতন্ত্র আব্দুস সামাদ ও স্বতন্ত্র জিয়াউল হকের মনোনয়ন পত্র বাতিল করা হয়েছে।
 
নওগাঁ-৫ (সদর) আসনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন পত্র জমা দেন। এদের মধ্যে এক জনের ছাড়া বাঁকিদের মনোনয়নপত্র বৈধ্য ঘোষণা করা হয়। 
 
বৈধ্যরা হলেন, আওয়ামী লীগের বর্তমান সাংসদ ব্যারিষ্টার নিজাম উদ্দিন জলিল জন, স্বতন্ত্র প্রার্থী বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক, দেওয়ান ছেকার আহম্মেদ শিষাণ, জাতীয় পার্টির ইফতেখারুল ইসলাম বকুল, জাসদ এর এসএম আজাদ হোসেন মুরাদ এবং জাকের পার্টির মশিউর রহমান এর প্রার্থীতা বৈধ্য ঘোষণা করা হয়। 
 
হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় এনপিপি’র খন্দকার আমিনুর রহমান এর প্রার্থীতা বাতিল করা হয়।
নওগাঁ-৬ আসনে ১২ জন মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন। যাচাই-বাছাই শেষে ৮ জনের প্রার্থী বৈধ্য ঘোষণা করা হয়। 
 
বৈধ্য প্রার্থীরা হলেন আওয়ামী লীগের আনোয়ার হোসেন হেলাল, স্বতন্ত্র ওমর ফারুক সুমন, স্বতন্ত্র প্রার্থী নওশের আলী, স্বতন্ত্র জাহিদুল ইসলাম, জাতীয় পার্টির আবু বেলাল হোসেন, তৃণমূল বিএনপির পিকে আব্দুর রব, বাংলাদেশ কনগ্রেস এর আব্দুস ছাত্তার, জাকের পার্টির রবি রায়হান।
 
বিভিন্ন অসংগতি থাকায় ৪ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করা হয়। এদের মধ্যে মামলায় খালাস পাওয়ার পরও ৬টি মামলার তথ্য গোপন করা, সম্পদ বিবরণী ফরম ফাঁকা রাখায় স্বতন্ত্র প্রার্থী নাহিদ ইসলাম বিপ্লব, ২১ নং ফরম পূরণ না করা এবং নির্বাচনী সংসদীয় এলাকায় ১ শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর সম্বলিত সমর্থনসূচক তালিকায় ত্রুটিযুক্ত থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী এম এ রতন, ১ শতাংশ ভোটারের স্বাক্ষর সম্বলিত সমর্থনসূচক তালিকায় ত্রুটিযুক্ত থাকায় স্বতন্ত্র প্রার্থী শাহ জালাল উদ্দিন এবং হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় এনপিপি’র খন্দকার ইস্তেখাব আলমের প্রার্থীতা বাতিল করা হয়। 
 
নওগাঁর ৬টি আসন থেকে আওয়ামী লীগ, জাতীয় পার্টি, স্বতন্ত্র সহ অন্যন্যা দলের মোট ৫৫ জন মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। এর মধ্যে স্বতন্ত্র ৩১জন এবং অন্যান্য দলের ২৪ জন মনোনয়ন পত্র জমা দেন। 


আপনার মূল্যবান মতামত দিন: