চৌদ্দগ্রামে পূর্ব বিরোধের জেরে প্রবাসীকে হত্যা চেষ্টা

মনোয়ার হোসেন, কুমিল্লা প্রতিনিধি | ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ ১৬:৪৩

সংগৃহীত সংগৃহীত

কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে গাজী শাহজালাল (৩৭) নামে এক সৌদি প্রবাসীর উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় প্রবাসী শাহজালাল সহ আব্দুস সাত্তার (৪২) নামে আরও একজন গুরুতর আহত হয়েছে।

আহতদের চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান শেষে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার পৌরসভাধিন মধ্যম চাঁন্দিশকরা গাজী বাড়ীতে।

এ ঘটনায় পাঁচজনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও ৪-৫ জনের নামে ভুক্তভোগির পরিবারের পক্ষ থেকে চৌদ্দগ্রাম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অভিযোগ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) সকাল সাড়ে এগারটায় ভুক্তভোগি গাজী শাহজালাল তার নিজ বাড়ীর পাশে পৈত্রিক সূত্রে মালিকানাধিন পুকুরে জাল দিয়ে মাছ ধরতে গেলে পূর্ব শত্রুতার জেরে একই এলাকার গাজী আবুল বশরের ছেলে গাজী বাবু ও গাজী রিফাত, গাজী শাহজাহানের ছেলে গাজী আবুল বশর ও গাজী ফারুক এবং মৃত জুনা মিয়ার ছেলে গাজী শাহজাহানসহ অজ্ঞাতনামা আরও চার-পাঁচজন লোক ধারালো দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র ও লাঠিসোটা নিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়। হামলায় শাহজালালের মাথা ও পেটে ১নং বিবাদী গাজী বাবুর হাতে থাকা ছেনির কোপ লাগে। এতে সে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে ২নং বিবাদী গাজী ফারুক তার হাতে থাকা রামদা দিয়ে শাহজালালের দুই পায়ে এলোপাতাড়ি কোপ মারে এবং লোহার রড ও এসএস পাইপ দিয়ে পেটাতে থাকে। এতে শাহজালালের একটি পা ভেঙ্গে গেছে এবং অপর পা মারাত্মক ক্ষতবিক্ষত হয়। এ সময় অপরাপর বিবাদীরাও শাহজালালকে হত্যার উদ্দেশ্যে এলোপাতাড়ি মারধর করে। এদিকে শাহজালালের চিৎকার শুনে তার জেঠাতো ভাই গাজী আব্দুস সাত্তার এগিয়ে আসলে উল্লেখিত বিবাদীরা ক্ষিপ্ত হয়ে তার উপরও হামলা চালায়। হামলায় আব্দুস সাত্তারও গুরুতর আহত হন। পরে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে গুরুতর আহত অবস্থায় শাহজালাল ও আব্দুস সাত্তারকে উদ্ধার করে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক আহতদেরকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত আশঙ্কাজনক অবস্থায় আহতরা কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধিন অবস্থায় রয়েছে এবং থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ঘটনার মূলহোতা গাজী বাবুকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

আহত শাহজালালের স্ত্রী খালেদা বেগম জানান, ‘বিবাদীদের সাথে আমার স্বামীর পরিবারের দীর্ঘদিন যাবৎ জমি সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছিলো। এ ব্যাপারে কয়েকদফা গ্রাম্য শালিস দরবার হলেও কোনো মীমাংশা হয়নি। ঘটনার দিন আসামীরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে আমার স্বামীর উপর হামলা চালিয়ে তাকে মারাত্মকভাবে আহত করে। এ সময় আমার ভাশুর আব্দুস সাত্তারও গুরুতর আহত হন। আমি প্রশাসনের কাছে হামলাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানাচ্ছি’।

এ বিষয়ে চৌদ্দগ্রাম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শুভ রঞ্জন চাকমা বলেন, ‘দুইপক্ষই থানায় অভিযোগ দায়ের করেছে। পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে বাবু নামে একজনকে আটক করেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। ’

এ ব্যাপারে স্থানীয় পৌর কাউন্সিলর বদিউল আলম পাটোয়ারী জানান, ‘প্রবাসীর উপর হামলার ঘটনার কথা শুনেছি। আহত শাহজালাল ও আব্দুস সাত্তারকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কুমিল্লায় প্রেরণ করা হয়েছে। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মীমাংশার চেষ্টা চলছে। ’



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: