সরিষাবাড়ীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে সংবর্ধনা

সরিষাবাড়ী (জামালপুর প্রতিনিধি) | ১ জুলাই ২০২২ ১১:৪৩

ছবি: সময় ট্রিবিউন ছবি: সময় ট্রিবিউন

জামালপুরের সরিষাবাড়ি উপজেলার ২নং পোগলদিঘা ইউনিয়ন পরিষদের নব নির্বাচিত চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আশরাফুল আলম মানিককে সংবর্ধনা দিয়েছে ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড।

৩০ জুন (বৃহস্পতিবার) বিকেল ৩ টায় ইউনিয়ন পরিষদে এই সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। বীর মুক্তিযোদ্ধা ছাদেক আলীর সভাপতিত্বে সংবর্ধনার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়।

পোগলদিঘা ইউনিয়ন পরিষদের আওতাধীন বসবাসকারী সকল বীর মুক্তিযোদ্ধাদের ইউনিয়ন কর মওকুফ করেন বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান মুহাম্মদ আশরাফুল আলম মানিক। তিনি চেয়ারম্যান হওয়ার পর থেকে বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ ও তা বাস্তবায়নের মাধ্যমে ইতোমধ্যে ইউনিয়নবাসীর আস্থা অর্জন করেছেন। একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে তার এমন উদার ও মহৎ উদ্যোগের জন্য ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কর্তৃক তাকে এই সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

আশরাফুল আলম মানিককে উদ্দেশ্য করে কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ছাদেক আলী বলেন, ইউপি চেয়ারম্যান একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে আমাদের যে সম্মাননা দিয়েছেন তা সত্যিই মনে রাখার মতো, যা আগে কোন চেয়ারম্যান দেয়নি। আপনার হাত ধরে ইউনিয়নের সকল উন্নয়ন দৃশ্যমান হোক সেই প্রত্যাশা করছি।

ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, আমার বাবা একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, তিনি ১৯৭১ সালে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর হাত থেকে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমিকে রক্ষা করেছেন। আমি একজন মুক্তিযোদ্ধার সন্তান হিসেবে আপনারা যারা মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন আপনাদের প্রতি সম্মান রক্ষার্থে ইউনিয়ন কর মওকুফের ব্যবস্থা করেছি। সামনে আপনাদের দোয়া ও সহযোগিতার মাধ্যমে এই ইউনিয়ন কে উন্নয়নের রোল মডেলে পরিণত করব ইনশাআল্লাহ।

উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের একটি জায়নামাজ, একটি তসবিহ, একটি টুপি ও নগদ ১০০ শত টাকা প্রদান করা হয়েছে।

উক্ত সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, বীর মুক্তিযোদ্ধা গিয়াস উদ্দিন পাঠান (উপজেলা চেয়ারম্যান), বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ ছাদেক আলী কমান্ডার (২নং পোগলদিঘা ইউনিয়ন কমান্ড), বীর মুক্তিযোদ্ধা এম.এ লতীফ, বিএলএফ কমান্ডার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ সুজাত আলী ফকির, সাবেক ডেপুটি কমান্ডার (জামালপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ মোফাজ্জল হোসেন, সাবেক কমান্ডার (সরিষাবাড়ি উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার, ইউনিয়নের সকল মুক্তিযোদ্ধা, সাংবাদিক ও অন্যান্য সুধীবৃন্দ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: