তাড়াইলে কীটনাশক পানে এক কলেজ ছাত্রীর আ’ত্ম’হ’ত্যা

তাড়াইল(কিশোরগঞ্জ)প্রতিনিধি :  | ২০ জুন ২০২২ ২১:৪৪

সংগৃহীত সংগৃহীত

কিশোরগঞ্জের তাড়াইল উপজেলার রাউতি ইউনিয়নের উত্তর পাড়ার মজিবুর রহমনারে সর্বকনিষ্ঠ কন্যা কলেজ পড়ুয়া মুনিয়া আফরিন মমি(১৮) নামে এক ছাত্রী কীটনাশক পান করে আত্মহত্যা করেছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মুনিয়া আফরিন মমি তাড়াইল সরকারি মুক্তিযোদ্ধা ডিগ্রী কলেজ হতে এ বছর এইসএসসি পাশ করে অনার্সে ভর্তির প্রস্তুতি নিচ্ছিল। আজ ২০ শে জুন সোমবার সকাল ১০টার দিকে নিহত মমি'র ভাবি ঘরের আনুসাঙ্গিক কাজকর্মে সহযোগীতা করার জন্য মমি'কে ডাকাডাকি করেন।সাড়াশব্দ না পাওয়ায় মমি'কে নিজ ঘরের মেঝেতে বমি করতে দেখেন এবং প্রচুর দুর্গন্ধ অনুভব করেন।

সাথে সাথে বাড়ির অন্যান্য সদস্যদের বিষয়টি অবহিত করলে মমি'কে দ্রুত উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে এলে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে কর্তব্যরত চিকিৎক উন্নত চিকিৎসার জন্য কিশোরগঞ্জ আধুনিক সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন।সকাল ১১টার কিছু পরে কিশোেগঞ্জ সদর হাসপাতালের চিকিৎসক মমি'কে মৃত ঘোষণা করেন।

মমি'র পিতা মজিবুর রহমান এক প্রশ্নের জবাবে জানান,তার সর্বকনিষ্ঠ মেয়ে মমি'র মৃত্যুতে তিনি কাউকে দায়ী করছেন না।তিনি আরও জানান,সকলের অগোচরে ঘরে থাকা ইদুর মারার বিষ পান করে মমি'র মৃত্যু হয়।তবে কি কারনে মমি বিষ পান করেছে তিনি তা জানেন না বলে জানিয়েছেন।

সংবাদ পেয়ে সোমবার দুপুরে তাড়াইল থানার ওসি (তদন্ত) মিজানুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।তিনি জানান,মমি'র পড়ার টেবিলে তার নিজের লিখা একটি ডায়রী পাওয়া গেছে।মমি'র মৃত্যুর বিষয়ে এখনই নিদৃষ্ট করে কিছুই বলা যাচ্ছে না।তবে নিহত মমি'র পিতার কারও বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ নাই।

শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত তাড়াইল থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা দায়েরে প্রস্তুতি চলছে।তাছাড়া নিহতের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। 



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: