কুবিতে মাদক সেবন: সরবরাহকারীসহ আটক ৫

কুবি প্রতিনিধি | ২০ জুন ২০২২ ১৭:৩১

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়-ফাইল ছবি কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়-ফাইল ছবি

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে (কুবি) মাদক সেবনের সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক শিক্ষার্থীসহ ৪ জনকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। পরবর্তীতে আটকৃতদের দেয়া তথ্য মতে নার্গিস আক্তার নামে গাঁজা সরবরাহকারীকে ১ কেজি গাঁজাসহ আটক করেছে পুলিশ।

রোববার (১৯ জুন) কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পেছন থেকে মাদক সেবনকালে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন- কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আনাস আহমেদ, লাইলমাই কলেজের মার্কেটিং বিভাগের শিক্ষার্থী মো: রাসেল খান, স্টামফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী খাদিজা আক্তার নিশা এবং ঢাকার একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী আমিনুল ইসলাম।

আটক খাদিজা আক্তার নিশা প্রথমে নিজেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী দাবি করলেও  পরবর্তীতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অফিসে নিশি নিজের আসল পরিচয় দেন।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, বিকালের দিকে ক্যাম্পাসের কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পেছন থেকে শিক্ষার্থীরা ধোঁয়া ও বিদঘুটে গন্ধ পান৷ এরপর ধোঁয়ার উৎস খুঁজতে পেছনে গেলে তারা দেখতে পান সেখানে অভিযুক্তরা বসে মাদক সেবন করছেন। এসময় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরকে ফোন দিয়ে বিস্তারিত জানালে সহকারী প্রক্টর মো: ফয়জুল ইসলাম ফিরোজ এসে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হন। এরপর প্রক্টর অফিসে বহিরাগতদের মুচলেকা নিয়ে অভিভাবকদের হাতে তুলে দেয়া হয়।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর (ভারপ্রাপ্ত) কাজী ওমর সিদ্দিকী বলেন, যারা বহিরাগত তারা সবাই বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী। ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে তাদের অভিভাবকদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। এছাড়া আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীকে কারন দর্শানোর নোটিশ দেয়া হবে। তার জবাবের পর আমরা প্রক্টরিয়াল বডি বসে তার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিব।

তিনি আরো বলেন, আজকের ঘটনা থেকে আমাদের সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হলো এইসব মাদক যারা সরবরাহ করে তাদের সোর্স পাওয়া। আমরা সেসব তথ্য পুলিশের কাছে দিয়েছে, তারা ব্যবস্থা নিবেন। এছাড়া ক্যাম্পাসে বহিরাগতরা যাতে অবাদে ঢুকে পরিবেশ নষ্ট না করতে পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।

এদিকে ঘটনা পরবর্তী সময়ে আটকৃতদের দেয়া তথ্য মতে নার্গিস আক্তার নামে এক গাঁজা সরবরাহকারীকে ১ কেজি গাঁজাসহ আটক করা হয়েছে বলেছে জানিয়েছেন কোটবাড়ী পুলিশ ফাঁড়ির দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রিয়াজ আহমেদ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: