ফরিদপুরে আঃলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে পুনরায় বহালের দাবি

এহসান রানা, ফরিদপুর প্রতিনিধি | ২১ এপ্রিল ২০২২ ১৭:১৮

ছবিঃ সংগৃহীত ছবিঃ সংগৃহীত

ফরিদপুর জেলা আওয়ামী লীগের কমিটি গঠন করা হবে। এর মধ্যে সম্মেলনের তারিখও ঘোষণা করা হয়েছে। আগামী ১২ মে সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। গত ১৬ এপ্রিল বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। ঐ বর্ধিত সভায় আঃলীগের একাধিক কেন্দ্রীয় নেতারা উপস্থিত ছি্লেন। তাদের মধ্যে ছিলেন কর্ণেল ফারুক খান, আব্দুর রহমান, মির্জা আজমসহ প্রমুখ। কেন্দ্রীয় নেতারা একটা কথা বলেছেন ফরিদপুরের জেলা আঃলীগের কমিটির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কে হবেন। এটা শুধু দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা জানেন। তিনি যাকে যোগ্য মনে করবেন তিনিই হবেন ফরিদপুরের জেলা আঃলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

তবে দীর্ঘদিন ধরে ফরিদপুরে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক পদ পদবীর আশায় প্রচারণা চালাচ্ছেন প্রায় ১০/১৫ জন নেতারা। তাদের মধ্যে রয়েছে সভাপতির তালিকায়- প্রবীন আঃলীগ নেতা বাবু বিপুল ঘোষ, জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি শামীম হক, প্রবীন আঃ লীগ নেতা শামসুল হক ভোলা মাস্টার, বর্তমান সভাপতি সুবল চন্দ্র সাহা, ডাঃ এম এ জলিল ও সাবেক যুবলীগের প্রেসিডিয়াম মেম্বার মোঃ ফারুক হোসেন।

সাধারণ সম্পাদকের তালিকায় আছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ হোসেন, সাবেক তুখোর ছাত্রনেতা লিয়াকত হোসেন, আঃলীগের মহিলা নেত্রী আইভি মাসুদ, ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র অমিতাভ বোস, সাবেক ছাত্রনেতা জামালউদ্দিন কানু, জেলা আঃ লীগের শিক্ষা ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক দীপক কুমার মজুমদার ও নবাগত যশোদা জীবন দেবনাথ ।

তবে তৃনমূল ও ফরিদপুরের সাধারণ জনগণ যে সকল জনগন আঃ লীগকে সমর্থন ও ভোট দেয় এ ধরনের জনগন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক এই দুইটি পদ পুর্নবহালের দাবি করেন। তাদের যুক্তি বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কোন ঝায় ঝামেলা পছন্দ করেন না এবং টেন্ডার বাজ না। তারা নিরীহ ও নিরিবিলি টাইপের মানুষ।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে ফরিদপুরের একাধিক নেতা কর্মীরা জানান, বর্তমান সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে পুর্নবহাল করলে মন্দ হয় না। এতে আমাদের কোন আপত্তি নেই।

তারা আরো জানান ,পূর্বের কমিটিতে যারা হাইব্রীড হিসেবে পরিচিত তাদেরকে কমিটি থেকে বাদ দেয়া অতি জরুরী এবং কয়েকজন কমিটির নেতারা মৃত্যু বরণ করেছেন সে সকল নেতা কর্মীদের নাম প্রত্যাহার করে ত্যাগী নেতা কর্মীদের নিয়ে নতুন ভাবে ফরিদপুর জেলা আঃলীগের কমিটি গঠন করার দাবি জানায় ।

এদিকে একাধিক ব্যক্তিরা সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ অন্যান্য পদপদবি পাওয়ার জন্য কেউ কেউ আঃলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য আব্দুর রহমান, কেউ কেউ প্রেসিডিয়াম সদস্য কাজী জাফরউল্লাহ, কেউ কেউ আঃলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজমের নিকট দৌড় ঝাপ শুরু করেছেন। তবে কেন্দ্রীয় এক নেতা ইতিপুর্বে ফরিদপুরের কয়েকটি কমিটি করে বির্তকে পড়েছে এবং তার গ্রহণযোগ্য কিছুটা হ্রাস পেয়েছে।

উল্লেখ্য , বর্তমান ফরিদপুর জেলা আঃলীগের সভাপতির দায়িত্বে আছেন অ্যাড সুবল চন্দ্র সাহা ও সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্বে আছেন বীর মুক্তিযোদ্ধা সৈয়দ মাসুদ হোসেন ।

সভাপতি প্রার্থী বাবু বিপুল ঘোষ, শামীম হক, সুবল চন্দ্র সাহা ও সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী সৈয়দ মাসুদ হোসেন, লিয়াকত হোসেন, জামাল উদ্দিন কানু প্রমুখরা জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও দলের সভানেত্রী শেখ হাসিনা যাকে ভালো মনে করেন তাদেরকেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত করবেন। আমরা নেত্রীর নির্দেশ মাথা পেতে নেব। যাকেই সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক ঘোষণা করা বা দেয়া হবে তার সাথে আমরা কাজ করতে প্রস্তুত ।



আপনার মূল্যবান মতামত দিন: